অক্সফোর্ডে টিকা বন্ধ হতেই, দেশীয় ভ্যাকসিনের ট্রায়ালে চূড়ান্ত সাফল্য

অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিনের ট্রায়াল নিয়ে যখন বিশ্বজুড়ে শোরগোল চলছে, তখন সুখবর এল ভারতের কোভ্যাকসিন নিয়ে। ভারতের ভ্যাকসিন নির্মাতা সংস্থা ভারত বায়োটেক জানিয়েছেন, পশুর উপর ট্রায়াল সফল হয়েছে। ভারত বায়োটেকের তরফ থেকে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে স্তন্যপায়ী প্রাণীর শরীরে সক্রিয় ভাইরাল সংক্রমণ সাফল্যের সঙ্গে আটকেছে তাদের ভ্যাকসিন। তারা ভরসা দিয়েছে যে এই ভ্যাকসিন মানুষের উপর দ্রুত কার্যকর হবে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলবে।

প্রসঙ্গত, অক্সফোর্ড তৈরি ভ্যাকসিনের তৃতীয় স্তরের ট্রয়াল হঠাৎই থমকে যায়। ব্রিটেনের এক স্বেচ্ছাসেবকের শরীরে ভ্যাকসিনটি প্রয়োগের পর তিনি অসুস্থ হয়ে পড়ায়, ব্রিটেনে ট্রায়াল বন্ধ করে দেয়। যদিও ভারতে পরীক্ষামূলক প্রয়োগে থাকা সিরাম ইনস্টিটিউট এই ভ্যাকসিনের ট্রায়াল বন্ধ করতে চাননি। যদিও পরে ড্রাগ কন্ট্রোল জেনারেল অফ ইন্ডিয়া, সিরাম ইনস্টিটিউটকে শোকজ নোটিশ পাঠায়, তারপর থেকে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনের ট্রায়াল বন্ধ হয় ভারতে।

কোন ভ্যাকসিনটি সবার আগে আসবে ভারতের বাজারে, তা নিয়ে এখন জল্পনা চিকিৎসক মহলে। আগে সিরাম ইনস্টিটিউট জানিয়েছিল সবকিছু ঠিক থাকলে নভেম্বরে চলে আসছে ভ্যাকসিন। কিন্তু তৃতীয় ধাপের ট্রায়াল হঠাৎই বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তা এখন বিশবাও জলে।

কয়েকদিন আগে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন দাবি করেছেন, ভারত বায়োটেক ভ্যাকসিন তৈরি হয়ে যাবে ডিসেম্বর মাসেই, জানুয়ারি থেকে এর টিকাকরন শুরু হবে। যদিও চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের মতে, এবছর ভারত বায়োটেকের ভ্যাকসিন নিশ্চিত নয়। গণ উৎপাদন করা এখনই সম্ভব নয়। এছাড়াও টিকার ট্রায়ালের রিপোর্ট প্রতিমুহূর্তে বদলে যেতে পারে। কিন্তু এখন দেখার বিষয় এই দৌড়ে কে সবার প্রথম বাজিমাত করতে পারে।