দল বদলের জেরে পরিবারে ভাঙ্গন সৌমিত্র-সুজাতার

ভাঙ্গণের পথে সংসার, তাই রাজনৈতিক দল বদলের সিদ্ধান্ত সুজাতা মন্ডল খাঁ (Sujata Mondal Khan)-এর। এতদিন বিজেপিতে (BJP) ছিলেন সুজাতা। সুজাতার স্বামী সৌমিত্র খাঁ (Saumitra Khan) বিষ্ণুপুরের বিজেপির সাংসদ। কিন্তু এতদিন বিজেপিতে থাকার পরেও হঠাৎ দল বদল সৌমিত্র গিন্নির। ২০২১ এর নির্বাচনের আগেই দল বদল করে তৃণমূলে (TMC) যোগ দিলেন সুজাতা মন্ডল খাঁ। BJP leader Saumitra Khan’s wife joins TMC, served a divorce notice.

BJP leader Saumitra Khan’s wife joins TMC, served a divorce notice.

যখন তৃণমূল থেকে একের পর এক নেতা বিজেপি তে গিয়ে যোগ দিচ্ছেন ঠিক সেই মুহূর্তেই উলটপুরান ঘটালেন সুজাতা দেবী। মুকুল রায়, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের পর শুভেন্দু অধিকারী যেভাবে রাজনৈতিক দল পরিবর্তন করছেন তাতে করে মনে করা হচ্ছিল যে এভাবেই তৃণমূলের ঝুলি খালি হতে চলেছে। কিন্তু সুজাতার মত একজন হেভি ওয়েট রাজনৈতিক রাজনীতিবিদ যেভাবে হঠাৎ করে ভোটের মুখে ঘুরে দাঁড়ালেন তাতে করে ভোটের আগে তৃণমূল আশার আলো দেখছে।

তবে বিজেপি থেকে হঠাৎ করে তৃণমূলে দল বদল এর ঘটনায় সুজাতা এবং সৌমিত্র সংসারে এনে দিয়েছে ভাঙ্গন। হঠাৎ করে এই ধরনের দল বদল মেনে নিতে পারেননি সুজাতার স্বামী সৌমিত্র। আর সেই কারণেই সুজাতার কাছে ডিভোর্স নোটিশ পাঠিয়েছেন বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র। তবে সৌমিত্র ঘরণীর এই সিদ্ধান্ত স্বামীর সঙ্গে আলোচনা করে নেওয়া হয়েছে কিনা সেই বিষয়ে এখনও কোন সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি। সোমবার একটি সাংবাদিক বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন সুজাতা। সেখানে সাংবাদিকরা বারবার করে প্রশ্ন করেন সুজাতাকে এই বিষয়ে। কিন্তু যতবারই সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের তীর ছুটে আসে সুজাতার দিকে ততোবারই সুজাতা এড়িয়ে যান সেই প্রশ্ন।

সোমবার সাংবাদিক বৈঠকে সুজাতা দেবী বলেন, “কে বলতে পারে আগামী দিনে সৌমিত্র তৃণমূলে যোগ দেবে না?”। এরপরে সুজাতা দেবী আরো বলেন, “এতদিন পর প্রাণ ভরে নিঃশ্বাস নিতে পারছি।” অন্যদিকে সৌমিত্র বলেছেন তৃণমূল তাদের পরিবারে ভাঙ্গন ধরিয়ে দিল। তবে পারিবারিক অশান্তির জেরে সুজাতা দেবীর দল বদল নাকি দল বদল এর জেরে পারিবারিক ভাঙ্গন এখনো খাঁ পরিবারের তরফ থেকে পরিষ্কার করে জানানো হয়নি। তবে দল বদল এর পরপরই সুজাতার কাছে সৌমিত্রের ডিভোর্স নোটিশ যায়।

সোমবার তৃণমূলে যোগ দেওয়ার অনুষ্ঠানে এসে সুজাতা খাঁ বলেন, তৃণমূলের জন্য বহুদিন ধরে প্রচুর লড়াই করেছেন তিনি। কোন নিরাপত্তা ছাড়া নিজের প্রাণ বাজি রেখে এতদিন লড়াই করেছেন। তাই এবার একটি চ্যালেঞ্জ নেওয়া দরকার ছিল।