কাটমানি কাকে বলে! কোটি টাকার ব্রিজ ভেসে গেল উদ্বোধনের আগেই

ব্রিজটি নির্মাণ করতে খরচ হয়েছিল মোট 1 কোটি 41 লাখ টাকা। ব্রিজটি নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছিল 2019 সালের সেপ্টেম্বর মাসে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অসুবিধার কথা মাথায় রেখে বছর খানেকের মধ্যেই দ্রুততার সঙ্গে কাজ করে ব্রিজটি নির্মাণ সম্পূর্ণ করা হয়। স্থানীয় মানুষরা আশায় বুক বেধে ছিল তাদের আর কষ্ট করে নদী পার হতে হবে না। কিন্তু এক রাতের মধ্যেই সব আশা ভেঙে চুরমার হয়ে গেল গ্রামবাসীদের। সকালে উঠে দেখে ব্রিজ বলে কিছুই নেই নদীর উপর! ব্রিজটি উদ্বোধন হওয়ার আগেই ভেসে গেল নদীর জলে। ঘটনাটি বিহারের কৃষ্ণগঞ্জ জেলার গোবাবাড়িতে কঙ্কই নদীর উপর নির্মাণ করা হয়েছিল।

প্রশাসন সূত্রে খবর, দিন কয়েকের মধ্যেই সেই ব্রিজটি উদ্বোধন হওয়ার কথা ছিল। স্থানীয় বাসিন্দারা অভিযোগ করেছেন, ব্রিজটি অতি নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছিল। সে কারণে সামান্য নদীর স্রোতে ভেঙে গেল ব্রিজটি। যদিও প্রশাসন সূত্রে দাবি করা হয়েছে, গত একমাস ধরে কঙ্কই নদী বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, প্রশাসনের কাছে তারা বারবার জলস্তর মাপার আবেদন জানিয়েছে। কিন্তু প্রশাসন কোনো ভ্রুক্ষেপ করলেন। ব্রিজটি কিছুটা দূরেই কাঁচা রাস্তা। ওই এলাকাতে নদী পাড় ভাঙতে শুরু করে। হয়তো ওই রাস্তাটি পাকা করে দিলে ব্রিজটি ভাঙতো না।

2017 সালে কৃষ্ণগঞ্জ এলাকায় ভয়াবহ বন্যা হয়েছিল। সেই সময় গোবাবাড়ি ও কুন্দলির মধ্যে যোগাযোগের একমাত্র রাস্তাটি ভেঙে যায়। বহুদিন ধরেই প্রশাসনের কাছে এলাকাবাসীর ব্রীজ নির্মান করা দাবি জানাচ্ছিল। গতবছর প্রশাসন সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে ব্রিজ নির্মাণ শুরু করে। কিন্তু ওই ব্রিজ উদ্বোধনের আগেই ভেঙে গিয়েছে। ফলে ক্ষোভে ফুঁসছে গ্রামবাসীরা। তার ওপর বিস্তীর্ণ এলাকা এখন জলমগ্ন। প্রশাসনের কর্তারা তাদের কোনো খোঁজ-খবর নেয় না বলে দাবি করেছে স্থানীয় বাসিন্দারা।

Arindam

Content writer and blogger at Sangbad World