নিজের দেশেই হাজার হাজার মসজিদ গুঁড়িয়ে দিচ্ছে চিন, ডিটেনশন ক্যাম্পে লক্ষাধিক মুসলিম

ফের সংবাদের শিরোনামে চিন। করোনা, প্যাংগং লেকে উত্তেজনার পর আবারও নজরে সেই চিন-ই। এবার শোরগোল অন্য বিষয়ে। লক্ষ লক্ষ মুসলিমকে চাপ দিয়ে ধর্মকর্ম ত্যাগ এবং শিনজিয়াং প্রদেশে কয়েক হাজার মসজিদ ধ্বংসের বিরুদ্ধে আঙুল উঠল চিনের দিকে। অস্ট্রেলিয়ান স্ট্র্যাটেজিক পলিসি ইনস্টিটিউট (ASPI) স্যাটেলাইট প্রাপ্ত ছবি দেখে যে রিপোর্ট দেয়, তা থেকে জানা যায় ইতিমধ্যেই প্রায় ৮৫০০ টি মসজিদ ধ্বংস করা হয়েছে, যার মধ্যে প্রায় ১৬০০ টি ধ্বংস হয়েছে গত বছরেই। এবং এই ঘটনার নেপথ্যে একটাই নাম, সেই ‘চিন’।

এমনকি উরুমকি ও কাশগড় শহরের বাইরে অবস্থিত বেশিরভাগ মসজিদই মাটিতে মিশিয়ে দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, উইঘুর ও তুর্কিকভাষী ১০ লক্ষাধিক মুসলিমকে রাখা হয়েছে ডিটেনশন ক্যাম্পে। পাশাপাশি তাদের চাপ দিয়ে ধর্ম-কর্ম থেকে বিরত করে রেখেছে চিন। তাদের সমস্ত রকম ধর্মীয় স্বাধীনতায় ছেদ ঘটানো হয়েছে। বিরত রাখা হচ্ছে মুসলিমদের ঐতিহ্য থেকেও।

তবে কিছু মসজিদ অক্ষত ও অর্ধভগ্ন অবস্থায় রয়েছে,অবশ্য সেগুলির গম্বুজ বা চূড়া কিছুই নেই,সবই সরিয়ে ফেলেছে চিন। ASPI এর রিপোর্ট অনুযায়ী শিনজিয়াংয়ে এখনো প্রায় ১৫০০টির মত মসজিদ অক্ষত রয়েছে।১৯৬০ সালে চীনে যে জাতীয়তাবাদী চেতনার উদ্ভব হয় সেখান থেকে এখন পর্যন্ত মুসলিম পরিবারের সংখ্যা এসে ঠেকেছে তলানীতে। সিংহভাগ মুসলিমের ধর্মীয় স্থান, কবর, তীর্থের পথ মুছে দেওয়া হয়েছে। তবে চিন এইসব কোনো অভিযোগই স্বীকার করেনি, উল্টে তারা দাবি করছে শিনজিয়াঙের বাসিন্দাদের পূর্ণ ধর্মীয় স্বাধীনতার অধিকার রয়েছে।

China is demolishing thousands of mosques
China is demolishing thousands of mosques