সীমান্তে মার খাওয়ার পর চীন এবার ব্রহ্মপুত্র নদীতে ড্যাম তৈরি করে ভারতকে ঘেরার চেষ্টা

ভারত এবং চীন (India-China) যেন চির প্রতিপক্ষ দুই দেশ। কোন না কোন বিষয় নিয়ে দুই দেশের মধ্যে ঠোকাঠুকি লেগেই রয়েছে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী চীনা প্রেসিডেন্ট জিং পিং এর সঙ্গে সৌজন্যমূলক ভাব বিনিময় করে এলেও চীন এবং ভারতের মধ্যে তিক্ত সম্পর্ক এখনো কাটেনি এবং তা কবে কাটবে তা কেউ জানে না। চীন এবং ভারতের মধ্যে নতুন করে সমস্যা সৃষ্টি করেছে ব্রহ্মপুত্র (Brahmaputra) নদ। ‌ব্রহ্মপুত্র কে নিয়ে দুই দেশের মধ্যে নতুন করে শুরু হয়েছে উত্তেজনা। চীন সরকারের তরফ থেকে ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর জলবিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র তৈরি করতে চাইছে চীন। সেই নিয়েই যত সমস্যা দুই দেশের মধ্যে।

China is now trying to encircle India by building a dam on the Brahmaputra river
China is now trying to encircle India by building a dam on the Brahmaputra river

এতদিন ধরে লাদাখ অঞ্চলে প্যাংগং লেক এর কাছে ভারত এবং চীনের সেনা মোতায়েন নিয়ে যে ঝামেলা সৃষ্টি হয়েছিল তা সদ্যই নিয়ন্ত্রণে এসেছে। অবশ্য তার পরিবর্তে প্রাণ গেছে বহু ভারতীয় সেনার। এর আগেও ডোকলাম কাণ্ড নিয়ে ভারত ও চীনের মধ্যে কম মন-কষাকষি হয়নি। এবারে নতুন ইস্যু তৈরি হলো ব্রহ্মপুত্র নদ কে ঘিরে। ভারতের ব্রহ্মপুত্র নদের কিছুটা অংশ বয়ে গিয়েছে চীনের মধ্যে দিয়ে। এখন চীন চাইছে সেই নদের ওপর জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র তৈরি করতে। একটিই নদী দুই দেশের মধ্যে দিয়ে যেভাবে বয়ে গিয়েছে তাতে করে একটি দেশের অংশের ওপর জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র তৈরি হলে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে অন্য দেশের অংশটি।

ভারতের ব্রহ্মপুত্র নদ চীন প্রদেশে বয়ে গিয়েছে ইয়ারলুং জ্যাংবো নাম নিয়ে। চীনের ইয়ারলুং জ্যাংবো উচ্চগতি সম্পন্ন নদী নামেই পরিচিত। আবার ভারতে ব্রহ্মপুত্র ধীরগতি হিসেবেই পরিচিত হয়েছে। নিম্ন ধারার অংশের বেশির ভাগটাই বয়ে গিয়েছে ভারতের মধ্য দিয়ে। প্যাংগং লেক এলাকায় ভারতের শক্তিশালী স্থল সেনা এবং বায়ু সেনা মোতায়েন থাকায় সে দিক থেকে বেশ খানিকটা চাপে রয়েছে চীন সরকার। কিন্তু ব্রহ্মপুত্র নিয়ে সমস্যায় পড়তে হয়েছে ভারতকে।

নদী যে কোন সভ্যতার মূল চাবিকাঠি। প্রাচীন ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যাবে যে কোন সভ্যতা গড়ে উঠেছিল কোন একটি নদীকে কেন্দ্র করে। উদাহরণ হিসেবে যেমন বলা যায় মিশরীয় সভ্যতা গড়ে উঠেছে নীল নদের তীরে আবার সিন্ধু সভ্যতা গড়ে উঠেছে সিন্ধু নদের তীরে। সেইরকমই এই ব্রহ্মপুত্র কে ঘিরে বহু মানুষের জীবিকা গড়ে উঠেছে। ব্রহ্মপুত্র এর উপর ভরসা করে চলছে হাজার হাজার মানুষের সংসার। ব্রম্মপুত্রের কোন একটি অংশে জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র তৈরি করা হলে প্রভাব পড়তে পারে ব্রম্মপুত্রের অন্য একটি অংশের উপর। চীন যদি ব্রম্মপুত্রের উচ্চগতিসম্পন্ন অংশে অর্থাৎ ইয়ারলুং জ্যাংবো তে যদি তাদের কাঙ্ক্ষিত জলবিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র টি তৈরি করে তাহলে ভারতে বয়ে যাওয়া ধীরগতিসম্পন্ন ব্রম্মপুত্রের ওপর তার বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে। আশঙ্কা করা হচ্ছে ভারতের মধ্যে দিয়ে বয়ে যাওয়া ব্রম্মপুত্রের অংশের উপর যে প্রভাব পড়বে তার ফলে পরিবর্তন হতে পারে নদীর গতিধারা। যা প্রভাব ফেলবে ব্রহ্মপুত্র কে ঘিরে গড়ে ওঠা মানুষের জীবিকার ওপর।

তবে ইয়ারলুং জ্যাংবো এর ওপর তৈরি জলবিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র কে নিয়ে বেশ আশাবাদী চীন। চীনের তরফ থেকে মনে করা হচ্ছে এই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র একটি মাইল ফলক সৃষ্টি করতে চলেছে ইতিহাসের পাতায়।