কি ভাবে হার্ট বিকল করে দেয় করোনাভাইরাস? জানাচ্ছেন চিকিৎসকরা!

প্রায় এক বছর হতে চলল পৃথিবীতে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে এই অদৃশ্য অণুজীব। যাকে চোখে দেখা না গেলেও তার ক্ষমতা সম্পর্কে ইতিমধ্যেই ওয়াকিবহাল বিশ্ববাসী। তাকে আটকে রাখার সম্ভব হয়ে উঠেনি এখনও কোনো দেশেরই চিকিৎসাবিজ্ঞানের। এখন অব্দি কোন রকম কোন উপায় বের হয়নি যাতে করে কোভিড-১৯ -এর রাষ টেনে ধরা যায়। করোনায় আক্রান্ত রোগীদের অন্যতম সাধারণ লক্ষণ হয় শ্বাসকষ্ট, জ্বর, সর্দি কাশি। যা ক্রমশ আরো দুর্বল করে মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে। এতদিন জানা গেছিল কোভিড-১৯ ভাইরাস (coronavirus) আক্রমণ করে মানুষের শ্বাস যন্ত্র কে। কিন্তু গবেষণা যত এগোতে থাকল ততই সামনে আসতে থাকলো থাকল বিধ্বংসী লক্ষণ সমূহ। Doctors are telling how coronavirus causes heart failure.

Heart in human body

গবেষণা যত এগোচ্ছে, ততোই প্রকাশিত হচ্ছে করোনাভাইরাস(COVID-19)-এর আরো অভিশপ্ত দিক গুলি। গবেষণায় যে তথ্য উঠে আসছে তা শুনলে ক্রমশ হাত পা ঠান্ডা হয়ে যাবে সাধারণ মানুষের। শ্বাসযন্ত্রের পাশাপাশি করোনা ভাইরাস থাবা বসাতে পারে হৃদযন্ত্রেও, এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এলো গবেষণায়। হৃদযন্ত্র বিকল হয়ে যাওয়ায় করোনা আক্রান্তদের মৃত্যু সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে। How Does Heart Gets Affected by Coronavirus?

চিকিৎসকেরা জানাচ্ছেন করোনা ভাইরাস হৃৎপিণ্ডকে সবার আগে আক্রান্ত করে। হৃদপিন্ডে অক্সিজেন সরবরাহ এক লহমায় আটকে দিতে পারে এই অদৃশ্য অণুজীব। অনেক সময় দেখা যায় হৃদযন্ত্র বিকল হওয়ার আগে তা পরিমাণে বেশ কিছুটা বেড়ে যায় এবং এই হূদযন্ত্রের প্রসারণ এর ফলে হৃদয় বিকল হয়ে মৃত্যু হয় করোনা আক্রান্ত রোগীদের। The coronavirus attacks the heart first.

আমেরিকার চিকিৎসকরা বলছেন করোনাভাইরাস মানুষের শরীরের শিরা উপশিরা ধমনীকে আকারে বড় করে দেয়, যার ফলে রক্ত জমাট বাঁধে তাড়াতাড়ি, ফলে হার্ট ব্লকের সমস্যা দেখা যায়। রক্ত তরল করার ওষুধ দিয়েও শেষ মুহূর্তে মৃত্যুর মুখ থেকে ফেরানো যায়না করোনা আক্রান্ত রোগীদের। করোনায় আক্রান্ত বেশিরভাগ মানুষেরই মৃত্যু হচ্ছে হৃদ যন্ত্র বিকল হয়ে। প্রায় ৩০ শতাংশ করোনা আক্রান্ত রোগীদের এই সমস্যাই দেখা দিচ্ছে।

নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত রোগীদের করোনায় আক্রান্তদের সংখ্যাও নেহাত কম নয়, ফলাফলে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ্যে এনেছেন চিকিৎসকেরা। কোভিডের ভ্যাকসিন বাজারে আনতে যেভাবে প্রতিযোগিতার দৌড়ে নেমেছে বিভিন্ন দেশ গুলি। তাতে করে ভ্যাকসিন এর বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।কোভিডের অন্যান্য সমস্ত উপসর্গগুলি কে বাগে আনতে পারলেও হৃদযন্ত্র এবং শ্বাস যন্ত্র বিকল হয়ে যাওয়ার সমস্যা কে এখনো কব্জা করতে পারেননি চিকিৎসকরা। কোথা থেকে কি হয়ে যাচ্ছে তার উৎস খুঁজতে খুঁজতেই প্রাণ চলে যাচ্ছে কোভিড রোগীদের।