কৃষক আন্দোলনের পাশে দাঁড়িয়ে মুখ খুললেন পপ গায়িকা রিহানা, গ্রেট থানবর্গ Rihanna and Greta Thunberg support on Farmers Protest

২০২০ এর শেষ সময় থেকে শুরু হয়েছে কৃষক আন্দোলন (Farmers Protest)। পাঞ্জাব থেকে দিল্লির লাল কেল্লা অনেকটা অংশ জুড়ে দিন দিন কৃষক আন্দোলনকে ঘিরে জল ঘোলা হয়ে চলেছে ক্রমশ। নতুন বছর ২০২১ এর প্রথম মাস শেষ হয়ে দ্বিতীয় মাস শুরুর দিকে তবুও কৃষকদের আন্দোলন আজও ঊর্ধ্বমুখী বৈকি নিম্নমুখী নয়। শীতের পারদ এর সাথে সাথে কৃষক লড়াই যেন উপরের দিকে চড়েই যাচ্ছে। দেশের অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ এতদিন পক্ষে বিপক্ষে ছিল ঠিকই কিন্তু এবার আর কেবল দেশের মধ্যে বিষয়টি থেমে নেই। বিদেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়ে তাদের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিয়েছে। Govt of India reacts to Rihanna and Greta Thunberg comments on Farmers Protest in India.

Rihanna and Greta Thunberg support on Farmers Protest

মার্কিন গায়িকা রিহানা (Rihanna) এবং সমাজকর্মী গ্রেট থানবর্গ (Greta Thunberg) সোশ্যাল মিডিয়ায় টুইট করে প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করেছেন যে, “সংবেদনশীল সোশ্যাল মিডিয়া হ্যাশট্যাগের প্রলোভন দেখিয়ে তারকারা যখন কোন মন্তব্য করেন কিংবা কোনো কিছুকে সমর্থন করেন সবসময় তা সঠিক হয় না বা দায়বদ্ধতার পরিচয় হয় না।” তাঁদের মন্তব্য এখানেই দাঁড়ি টানেনি, বরং আরো বলেছেন, “এ ধরনের বিষয়গুলিতে মন্তব্য করার আগে সত্যতা যাচাই করে নেওয়া উচিত , এই বিষয়গুলোর মধ্যে ঢোকার আগে ঠিক কী ঘটেছে তা বুঝে নেওয়া উচিত।” Rihanna and Greta Thunberg support on Farmers Protest in India!

মার্কিন তারকা রিহানা (Rihanna) মঙ্গলবার টুইট করে প্রসঙ্গ তুলেছেন যে কৃষক আন্দোলন নিয়ে কারো কোন মন্তব্য নেই কেন? আবার থানবাগ এর মন্তব্য যে , “ভারতের কৃষক আন্দোলনের প্রতি সহমর্মিতা রয়েছে।”

বিদেশি গায়িকা রিহানা (Rihanna) ও সমাজকর্মী থানবার্গের (Greta Thunberg) মন্তব্যে বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে নিজের মতামত জানান ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতের প্রতিবাদী অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত (Kangana Ranaut)। এক কথায় বলা যায় রিহানার টুইট বক্তব্য সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখে রীতিমতো তেড়ে ওঠেন কুইন নায়িকা। কুইন এর বক্তব্য বাইরের দেশের কেউ যেন ভারতের কৃষক আন্দোলনের বিষয়ে কোন মতামত দিতে না আসে। তাঁর কথায় কৃষকরা এক একজন সন্ত্রাসবাদী। এই ঘটনা গোটা ভারতকে ভেঙে দেওয়ার এক বড় ষড়যন্ত্র ছাড়া আর কিছুই না। মার্কিন মুলুকে যেমন চীনের আধিপত্য বিস্তার হয়েছে, কলোনি আছে ঠিক সেভাবেই ভারতকে চালনা করার কৌশল মাত্র। যাতে ভারতবর্ষেও একইভাবে আধিপত্য বিস্তার করা যায় সাথে চীনের দেশের লোকজন এ দেশে ঢুকে পাকাপাকিভাবে ছড়ি ঘোরাতে পারে। এরপর তিনি আরো রিহানার বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বলেন, একদম চুপ করে বসে থাকতে, ভারতকে কোনোভাবেই বিক্রি করবে না ।