ড্রাইভিং লাইসেন্সে এলো পরিবর্তন, প্রয়োজন নেই হার্ডকপির, সফ্টকপিই শেষ কথা

গাড়ির লাইসেন্স সাথে নিয়ে ঘোরার অভ্যাস আমাদের অনেকেরই নেই। তাড়াহুড়োতে বাড়িতে লাইসেন্স ভুলে গিয়ে রাস্তায় ট্রাফিক পুলিশের কাছে ফাইন ভরতে হয়নি এমন চালক বোধহয় হাতে গোনা। তবে আগামী মাস থেকে এইধরনের ভুল হলে যাতে চালককে আর কোনো সমস্যায় পড়তে না হয় সেই ব্যবস্থাই করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

গাড়ির মালিক বা চালকদের জন্য এ এক দারুণ খবর। বাইক, প্রাইভেট কারের পাশাপাশি বাসের ক্ষেত্রেও চালু হতে পারে এই নয়া কার্যবিধি।

পয়লা অক্টোবর থেকে দেশে কার্যকর হতে চলেছে এই নতুন নিয়ম। ড্রাইভিং লাইসেন্স এবার থেকে আর চালকের সঙ্গে রাখতে হবে না। লাইসেন্স এর পাশাপাশি গাড়ির রেজিস্ট্রেশন, ইনসিওরেন্স, পলিউশন সার্টিফিকেট ও সাথে নিয়ে ঘোরার আর দরকার নেই।ট্রাফিক পুলিশ এবার থেকে গাড়ির কাগজ দেখতে চাইলে আর দেখাতে হবে না হার্ডকপি।অর্থাৎ গাড়ির লাইসেন্স সাথে নিয়ে ঘোরার ঝক্কি আর রইল না। লাইসেন্স বাড়িতে ভুলে গেলেও আর আপনাকে ট্রাফিক পুলিশ কেস দিতে পারবে না,ভরতে হবে না ফাইন ও।গাড়ি সংক্রান্ত যাবতীয় নথির সফ্ট কপি সাথে থাকলেই হবে,ব্যাস, তা দেখালেই যথেষ্ট। ডিজিটাল ইন্ডিয়ার পথে এ এক অন্যতম পদক্ষেপ যা চালু হতে চলেছে আগামী মাসের ১ তারিখ থেকেই।

তবে এই সুবিধা লাভের ক্ষেত্রে গাড়িচালককে একটি বিশেষ পদক্ষেপ নিতে হবে।ড্রাইভিং লাইসেন্স বা গাড়ির অন্যান্য যাবতীয় নথি কেন্দ্রীয় সরকারের ‘Digi-locker’ বা ‘m-parivahan’ পোর্টালে যুক্ত করতে হবে। তা যদি না করা হয় তাহলে সেই হার্ডকপিই দেখাতে হবে চালক কে।

১৯৮৯ সালের কেন্দ্রীয় মোটর ভেহিকেলে যা যা পরিবর্তন আনা হয়েছিল, তাই লাগু করা হবে আগামী মাসের পয়লা তারিখ থেকে।কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ ও হাইওয়েজ মন্ত্রক সূত্রে খবর রাস্তাঘাটে চালকদের হেনস্থা কমাতে ট্রাফিক আইনে এ সকল বদল আনা হয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বদল টি হল গাড়ির লাইসেন্স সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য ভেরিফাই করা হবে অনলাইন পোর্টালের মাধ্যমে। চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স বাজেয়াপ্ত বা বাতিল করতে হলেও তা করতে হবে অনলাইনেই, পোর্টালের মাধ্যমে। এর ফলে কোন ট্রাফিক পুলিশ কোথায় কি নথি পরীক্ষা করছেন তা সহজেই জানা যাবে পোর্টালের মাধ্যমে। পাশাপাশি এই সকল নথি কখন পরীক্ষা করা হচ্ছে তার রেকর্ডও থাকবে পোর্টালে। ফলে একই গাড়ির কাগজ বারবার পরীক্ষা করার দরকার পড়বে না। ট্রাফিক আইন ভঙ্গ করলে জরিমানাও দিতে হবে অনলাইনেই।