কুকুর পুষলে বাড়বে মানুষের আয়ু! জানুন কিভাবে সম্ভব!

কুকুরের প্রতি শখ প্রচুর মানুষেরই থাকে। কুকুর পোষা যেন নেশার মত হয়ে ওঠে কারোর কারোর জীবনে। একটা কুকুর পুষে তখন যেন শখ মেটে না। সাধারণ মানুষরা তো বটেই, এই তালিকা থেকে বাদ যান না সেলিব্রেটিরাও। সালমান খান, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, হৃতিক রোশন সকলেরই কুকুরের প্রতি দুর্বলতা রয়েছে। Do dog owners live longer?

Best Relation between humans and dogs
Best Relation between humans and dogs

তবে বিজ্ঞান বলছে কুকুর পোষা কেবল নেশা তা নয়, কুকুর পোষার সাথে রয়েছে বৈজ্ঞানিক যোগাযোগ, শারীরিক সম্পর্ক। বিজ্ঞান বলছে যারা কুকুর পোষে তাদের আয়ু যারা কুকুর পোষে না সেই সকল মানুষের চেয়ে বেশি হয়। কুকুরের সঙ্গে তার মনিবের এমন একটি আত্মিক সম্পর্ক তৈরি হয় যা মানুষের মন ভালো রাখতে সাহায্য করে যা পরোক্ষভাবে প্রভাব ফেলে তার আয়ুর ওপর। বাঁচার ইচ্ছেকে বাড়িয়েদেয় মানুষের। How dogs increase human life span?

দ্য হার্ট অ্যাসোসিয়েশন জার্নালে (Heart Association Journal) প্রকাশিত একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে যারা কুকুর (Dog) পোষান তাদের হৃদয় বাকিদের থেকে সচল বেশি থাকে, স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনাও কম হয় তাদের। কুকুরের দেখাশোনা করতে গিয়ে তার পেছনে রীতিমতো দৌড়াতে হয় মনিবদের। যা মনিবদের হার্ট ভালো রাখতে সাহায্য করে।

যাদের সঙ্গে কুকুর থাকে তাদের হৃদরোগের আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর হার কম হয় ৩৩ শতাংশ। অন্যথায় যারা পছন্দের সঙ্গীর সঙ্গে থাকেন, তাদের হৃদরোগে আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা আরও বেশি। (How to increase human life?)

মানুষের সঙ্গে কুকুরের সম্পর্ক সেই প্রাচীনকাল থেকেই। আদিম যুগের মানুষের প্রথম পোষ মেনেছিল যে প্রাণী সে হল কুকুর। তুষার যুগ থেকে মানুষের একমাত্র সঙ্গী সারমেয়।’সায়েন্স’ ম্যাগাজিনে প্রকাশিত একটি গবেষণা বলছে কুকুরের প্রতি মানুষের বিশ্বাসযোগ্যতা এবং ভরসা যতটা, উল্টো দিক থেকে ব্যাপারটাও একই রকম। মনিবের প্রতি কুকুরের বিশ্বাসযোগ্যতা এবং ভরসা জায়গাটা আরো বেশি দৃঢ়। ফ্রান্সিস ক্রিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গবেষণার একটি দল এই গবেষণাটি চালাচ্ছেন। যে গবেষণায় তারা জানিয়েছেন প্রায় ২৫ রকমেরও বেশি প্রজাতির কুকুরের জিন নিয়ে এর পরীক্ষাটি চালাচ্ছেন তারা।

এই সমীক্ষায় যে সকল মানুষকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় অর্থাৎ এই গবেষণার সঙ্গে শামিল করা হয়েছে এমন মানুষ জন যারা তাদের মধ্যে বেশিরভাগই সুইডেনের বাসিন্দা। এ সকল মানুষদের মধ্যে যারা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন তারা স্বীকার করেছেন এই উপায় সত্যিই খুব কার্যকরী।