হলিউডে পা রাখতে চলেছেন হৃতিক রোশন, গুপ্তচরের ভূমিকায়

কাহোনা পেয়ার হ্যা দিয়ে যে যাত্রা শুরু হয়েছিল সেই যাত্রাপথের মধ্যগগণে এসে হলিউড থেকে ডাক পড়ল হিরোর। ২০০০ সালে মুক্তি পাওয়া অভিনয় জীবনের এই প্রথম ছবিটির পর বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে কেটে গেছে প্রায় বিশ টা বছর। ২০ বছরের অভিজ্ঞতা নিয়ে হলিউডে (Hollywood) পাড়ি জমাতে চললেন হৃত্বিক রোশন (Hrithik Roshan)। সূত্রের খবর এক অ্যাকশন থ্রিলারে গুপ্তচরের (spy thriller) ভূমিকায় গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করতে চলেছেন হৃত্বিক রোশন।

Hrithik Roshan to make his Hollywood debut, for a spy thriller
Hrithik Roshan to make his Hollywood debut, a spy thriller

২০০০-২০২০ সময়টা নেহাত কোনো ছোটখাটো সময় নয়। ২০ টা বছর বলিউডে কাটিয়ে শেষমেষ হলিউডে যাত্রা শুরু করলেন বলিউডের গ্রীক দেবতা। এই কুড়ি বছরের অভিনয় জীবনে সফল এবং অসফল ছবির সংখ্যা প্রচুর। সফল ছবি যেমন ঋত্বিকের আরো ভালো কাজ করার তাগিদ কে অনুপ্রেরণা জাগিয়েছে, তেমনি অসফল ছবিগুলি নিজেকে নতুন করে প্রমাণ করার স্বপ্ন দেখিয়েছে বাবার আদরের ডুগ্গু কে।

২০১৯ সালের ওয়ার ছবিটির অসামান্য সাফল্য এবং তাতে হৃত্বিকের অসাধারণ অ্যাকশন এবং অভিনয় তার ক্যারিয়ারের যাত্রা পথের সিংহদুয়ার টা খুলে দিল এভাবেই। এই ছবিটির সাফল্যের পরেই হৃতিকের হাতে আসে এই হলিউডের সুযোগ। শোনা যায় হৃত্বিকের ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি সাম্প্রতিক হাত মিলিয়েছে গ্রেস এজেন্সির সঙ্গে। এই সন্ধির ফলাফলই হৃত্বিক কে এনে দিল একটি হলিউড অ্যাকশন থ্রিলার এর গুরুত্বপূর্ণ দুটি চরিত্রের মধ্যে একটি।

এরইমধ্যে কাজ চলছিল কৃষ ৪ এর। বাবা রাকেশ রোশনের ক্যান্সারের চিকিৎসা এবং করোনা কালের লকডাউন এর জেরে কৃষ ৪ এর শুটিং কিছুটা পিছিয়ে যায়। তবে খুব শীঘ্রই সেই শুটিং শুরু করা হবে এমনটাই জানা যায় হৃত্বিকের ম্যানেজমেন্ট কোম্পানির তরফ থেকে। কৃষ ৪ এর শুটিং খুব শীঘ্রই শেষ করার প্ল্যান রয়েছে হৃত্বিকের। এবং এই ছবির শুটিং শেষ করেই তড়িঘড়ি হলিউড এর পথে পাড়ি দিতে চলেছেন বলিউডের এই গ্রীক গড।

এখনো পর্যন্ত অফিশিয়াল ভাবে কোনো ঘোষণা শোনা যায়নি রোশন পরিবারের ম্যানেজমেন্ট এজেন্সির তরফ থেকে। তবে মনে করা হচ্ছে সুপার থার্টি এবং ওয়ার ছবির অভাবনীয় সাফল্যই রিত্তিকের সামনে এত বড় একটা সুযোগ এনে দিলো। প্রসঙ্গত, সামাজিক ঘটনাকে ঘিরে একটি সত্য ঘটনার উপর নির্মিত ছবি ছিল সুপার থার্টি। ছবিতে একটি অন্য ধরনের চরিত্রে নিজেকে এত সুন্দর ভাবে ফুটিয়ে তুলেছিলেন ঋত্বিক যা দেখে দর্শকের কখনোই মনে হয়নি এটা কোন সত্য ঘটনার উপর নির্মিত ছবি, বরং মনে হয়েছে এই সেই সত্য ঘটনা, কোন ছবি নয়।