কেরল মেডিকেল কলেজে ছাত্রীদের জিন্স পরা নিয়ে আপত্তি করায় লুঙ্গি পরলেন ছাত্রীরা!

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল (Viral Photo) হওয়া ছবি নিয়ে তোলপাড় শুরু হয় নেটিজেন দের মধ্যে। বেশ কিছুদিন আগে সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হয়েছিল এলফ অফ লাক (Elf of luck) নামক একটি ছবি। যেখানে একজন বয়স্ক মানুষ কে দেখা গেছিল যাকে ম্যাজিকাল পাওয়ার সমন্বিত একজন ক্যারেক্টার হিসেবে মনে করা হয়েছিল। বলা হয়েছিল সেই ছবি শেয়ার করলে দুদিনের মধ্যেই আসতে পারে সুখবর। এমনকি ফিরতে পারে সৌভাগ্য। এই এলফ অফ লাক (Elf of luck) এরপর আরো এক অদ্ভুত ছবি ভাইরাল হলো সোশ্যাল মিডিয়ায়। ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে বেশ কয়েকজন মেয়ে লুঙ্গি পরে রয়েছেন। মনে করা হচ্ছে ভাইরাল হওয়া এই ছবিটি কেরলের মেডিক্যাল কলেজের ছাত্রীদের প্রতিবাদী প্রতীকী ছবি। (Kerala Medical College banned jeans, girls came in lungis!)

Kerala Medical College banned jeans, girls came in lungis
Kerala Medical College banned jeans, girls came in lungis

সাম্প্রতিক কেরলের মেডিকেল কলেজে ছাত্রীদের জিন্স পরা নিয়ে আপত্তি জারি করা হয়েছিল। মনে করা হচ্ছে মেয়েদের লুঙ্গি পরিহিত এই ছবি সেই কেরলের মেডিকেল ছাত্রীদেরই ছবি। কেরলের মেডিকেল কলেজের ছাত্রীদের জিন্স পরা নিয়ে আপত্তি তুলেছিল মেডিকেল কলেজের কর্তৃপক্ষ। সেই থেকে এই ঘটনাকে ঘিরে তৈরি করেছে বিভিন্ন বিতর্ক। বিভিন্ন প্রতিবাদ উঠে এসেছে একাধিক মঞ্চ থেকে। এই ঘটনার পরেই কেরলের মেডিকেল কলেজের ছাত্রীদের লুঙ্গি পরে এই ছবি পোস্ট করা নিয়ে মনে করা হচ্ছে এটি সেই ছাত্রীদের প্রতিবাদের ধরন।

কিন্তু এই ছবির আসল সত্যতা কী? এই ছবি তে যে মহিলাদের দেখা যাচ্ছে তারা কি আদৌ কেরলের মেডিকেল কলেজের ছাত্রী? এই নিয়ে প্রশ্নে সরগরম হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া। বহুবার শেয়ার করা হয়েছে সেই ছবিটি। পোস্ট করা এই ছবিটিকে রিটুইট করেছেন পরিচালক অনুভব সিনহা।

একটি সংবাদ মাধ্যম এই ছবির সত্যতা খুঁজে বের করার জন্য একটি অনুসন্ধান প্রক্রিয়া চালিয়ে ছিল। এই অনুসন্ধান শেষে তারা যে ফলাফল দিয়েছে তা শুনলে চমকে উঠবেন সকলেই। ইন্টারনেট থেকে তথ্য জোগাড় করে এই সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে লুঙ্গি পরিহিত মহিলাদের যে ছবি ভাইরাল (Viral Photo) হয়েছে সেই ছবিতে উপস্থিত মহিলারা কেউই মেডিকেল কলেজের ছাত্রী নন। কেরল মেডিকেল কলেজের মেয়েদের জিন্স পরা নিয়ে যে আপত্তি জারি করা হয়েছিল তা আজ থেকে প্রায় চার বছর আগের ঘটনা। ২০১৬ সালের এই ঘটনাকে জুড়ে দেওয়া হয়েছে ভাইরাল হওয়া এই ছবিটির সঙ্গে।

অনুসন্ধান করে ওই সংবাদ মাধ্যম জানায় ২০১৫ সালে দক্ষিণী অভিনেতা মহেশ বাবুর ‘ Srimanthudu’ নামে একটি ছবি মুক্তি পায়, সেই ছবিতে অভিনেতাকে লুঙ্গি পরে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছিল। আর তাই অভিনেতার অনুরাগীরা এভাবে অভিনেতার মতোই লুঙ্গি পরে ছবি তুলে তা সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন।যার সঙ্গে চিরল মেডিকেল কলেজের মেয়েদের জিন্স পরা নিয়ে যে আপত্তি জারি হয়েছিল সেই ঘটনার কোনো রকম কোনো সম্পর্কই নেই। Kerala Medical College banned jeans, girls came in lungis!!!