আবাসনের ২৪ তলা থেকে পড়ে কিশোরের রহস্যমৃত্যু, তদন্তে কলকাতার গোয়েন্দা বিভাগ

কলকাতার হাই রাইজ থেকে পড়ে মৃত্যু হল ১৭ বছরের এক কিশোরের। সোমবার সকালের এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে আনন্দপুর (Anandapur) অঞ্চলের ওই আবাসনের বাসিন্দাদের মধ্যে। ঘটনার দিন সকালবেলা হঠাৎ একটি আওয়াজ পেয়ে আবাসনের বাসিন্দারা বাইরে বেরিয়ে আসেন। বাইরে বেরিয়ে এসে দেখতে পান ঐ আবাসনেরই টাওয়ার ৫ এর পাশে এক কিশোর বাসিন্দা রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে মাটিতে। ১৭ বছরের মৃত ওই কিশোরের নাম রুদ্রনীল দত্ত (Rudranil Dutt)।

ওই অবস্থায় রুদ্রনীলকে পড়ে থাকতে দেখে সঙ্গে সঙ্গে আবাসনের বাসিন্দারা খবর দেন রুদ্রনীল এর বাড়িতে। তারপর সকলে মিলে ধরাধরি করে নিয়ে যাওয়া হয় বাইপাসের ধারে একটি হাসপাতালে। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রুদ্রনীল কে মৃত বলে ঘোষণা করেন। জানা যায় ২৪ তলা থেকে মাটিতে পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই মৃত্যু হয় বছর ১৭ এর ওই কিশোরের।

কিছুক্ষণের মধ্যেই ঘটনাস্থলে পৌঁছান কলকাতা পুলিশ ও কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ। ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রাথমিক তদন্ত শুরু করেন কলকাতা পুলিশের আধিকারিকেরা। প্রাথমিক তদন্তের পর জানা যায় ২৪ তলায় নিজের বারান্দা থেকে পড়ে গিয়েই মৃত্যু হয় ওই কিশোরের। কি ভাবে অত উঁচু বারান্দা থেকে নিচে পড়ে গেল রুদ্রনীল সেই নিয়ে তদন্ত চালাচ্ছেন কলকাতা গোয়েন্দা পুলিশ বিভাগের আধিকারিকরা।

রুদ্রনীলের মৃত্যুর তদন্তে নেমে পুলিশ কথা বলেছেন ঐ আবাসনের বাকি বাসিন্দাদের সঙ্গে। প্রতিবেশীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে বেশকিছু তথ্য হাতে উঠে এসেছে কলকাতা পুলিশের। পাশাপাশি রুদ্রনীলের বাবা-মা কেও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ। ২৪ তলার অত উঁচু বারান্দা থেকে কি করে রুদ্রনীল পড়ে গেলেন সেই নিয়ে সন্দেহ দানা বাঁধছে পুলিশ আধিকারিকদের মনে। এই ঘটনা নিছকই কোন দুর্ঘটনা নাকি আত্মহত্যা অথবা ঘটনার নেপথ্যে কোন চক্রান্ত কিংবা খুনের ষড়যন্ত্র রয়েছে কিনা তা খুঁজে দেখার চেষ্টা করছেন কলকাতা গোয়েন্দা পুলিশ বিভাগের আধিকারিকরা।

ঘটনার তদন্তের স্বার্থে কথা বলা হতে পারে রুদ্রনীলের বন্ধু-বান্ধবদের সাথেও, এমনটাই জানানো হয়েছে কলকাতা পুলিশের তরফ থেকে। কারুর সঙ্গে রুদ্রনীলের শত্রুতা ছিল কিনা কিংবা মানসিক দিক থেকে কোন কারনে রুদ্রনীল বিধ্বস্ত ছিল কিনা সেই বিষয়েও খতিয়ে দেখা হবে এমনটাই বলা হয় কলকাতা পুলিশের তরফ থেকে। বাড়িতে বাবা মা এর সঙ্গে কোন বচসা হয়েছিল কিনা সেই বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে রুদ্রনীলের বাবা মাকে।