মুখ পুড়ল পাকিস্তানের, ৬২ বছরের সাংসদ বিয়ে করলেন ১৪ বছরের নাবালিকাকে

Salahuddin, a 62-year-old Pakistani MP, married a 14-year-old girl
Salahuddin, a 62-year-old Pakistani MP, married a 14-year-old girl

সারা দেশ তথা বিদেশ জুড়ে যেখানে বাল্যবিবাহ কে রদ করা হচ্ছে এবং এই বিষয়ে কড়া নজর রেখে নতুন আইন শৃঙ্খলা তৈরি করা হচ্ছে সেই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে পাকিস্তান (Pakistani) এক অস্বাভাবিক কাজের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়েছে। যদিও সূত্রের খবর ১৬ বছরের নিচে পাকিস্তানের মেয়েদের বিবাহ করা আইনত অপরাধ। এরকম কোন কর্মকাণ্ড ঘটলে তার বিচার করা হবে বলেই পাকিস্তান সংসদে লেখা। Salahuddin, a 62-year-old Pakistani MP, married a 14-year-old girl.

কিন্তু এইসব আইন-শৃঙ্খলা নিয়মকানুন বিধিকে উপেক্ষা করে পাকিস্তানের (Pakistani) এক সাংসদ ১৪ বছরের একটি নাবালিকাকে বিয়ে করে চরম নির্লজ্জতার পরিচয় দেয়। ফলস্বরূপ সারা পাকিস্তান থেকে শুরু করে প্রতিবেশী দেশগুলোর কাছে এক মন্তব্যের মুখে শামিল হয়।

পাকিস্তানের (Pakistani MP) একজন রাজনৈতিক নেতা, যার বয়স ৬২টি বছর। তিনি একজন ১৪ বছরের একটি বাচ্চা মেয়েকে বিবাহ করেন। সেই রাজনৈতিক নেতার নাম মৌলানা সালাহ উদ্দিন (Salahuddin)। দেশের একজন সাংসদ হয়েও আইন-কানুন জেনেও তিনি এই ধরনের একটি কাজ করেছেন। সূত্রের খবর মেয়েটির বাবা বাড়িতে ছিলেন না। মেয়ের বাবার অবর্তমানে রাজনৈতিক সাংসদ মেয়েটিকে তার বাড়ি থেকে নিয়ে আসেন। মেয়েটির বাড়ি খাইবার পাকতুনখা রাজ্যে যা পাকিস্তান এবং আফগানিস্তানের সীমানা ঘেঁষে। স্কুলের শংসাপত্রে মেয়েটির বয়স দেওয়া আছে ২৮ অক্টোবর ২০০৮। তবে পুলিশ সূত্রে এও জানা যায় যে সাংসদের বাড়ি পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে।

পুলিশ সূত্রে খবর, এরকম ঘটনা পাকিস্তানের (Pakistani) একবার নয় একাধিকবার হয়েছে। এবং এমন এমন অশোভন মূলক কর্মকান্ড পাকিস্তানে হয়েছে যার জন্য সংবাদমাধ্যম থেকে শুরু করে আইনের দোরগোড়ায় পাকিস্তানকে দ্বারস্থ হতে হয় অনেকবার। বছরে তাদের নিয়ে সমালোচনার ঠেক বহুবারই হয়ে থাকে। এ বিষয় নতুন না। তবে বর্তমানে যে অশোভন মূলক কর্মকান্ড ঘটেছে তার তদন্ত পুলিশ শুরু করে ফেলেছে ইতিমধ্যেই।