‘হট যশের প্রেমে হাবুডুবু খাই, কিন্তু পদ্ম দিলে নেব না’! বিরহী Sandy Saha-র আক্ষেপ

Sandy Saha was in love with Yash Dasgupta
Sandy Saha was in love with Yash Dasgupta

স্যান্ডি সাহার (Sandy Saha) নাম আমরা সবাই শুনেছি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভীষণ চেনা একটি মুখ। তবে টেলিভিশনে রোডিজ নামে একটি রিয়্যালিটি শো তে বেশ বিখ্যাত হতে দেখা যায় তাকে। তবে এইবার যশ কে নিয়ে বেশ কিছু মন্তব্য করে দর্শকের চোখে পড়লো স্যান্ডি সাহা। যশ এর প্রসঙ্গে স্যান্ডি বলেছেন, এইবার দেখা হলে কি গোলাপের বদলে পদ্মফুল দেবে! তার এই মন্তব্যে ১৮০ টা লাইক পেয়েছেন। Sandy Saha was in love with Yash Dasgupta, but he breaks Sandy’s heart by joining BJP.

এরপরে সংবাদ সংস্থা তার সাথে যোগাযোগ করেন এবং সেখানে প্রকাশ্যে তিনি বলেন, মিমি-নুসরাত যা করতে পারেন নি তা সে নিজে করে দেখিয়েছেন। স্যান্ডির কথায় যশের চোখ গুলো দেখলেই প্রেমে পড়ার মতো। মিমি নুসরাত অভিনয় করতে পারে কিন্তু কোন দিনও যশকে হাসাতে পারেনি। কিন্তু আমি যে তাকে হাসাতে পেরেছি। তার মুখ ভঙ্গি বলতে একই রকম সেটা রাগ, ভয়,লজ্জা যাই হোক না কেন। এসওএস কলকাতার ছবি প্রচারে স্যান্ডির (Sandy Saha) ইউটিউব চ্যানেলে যশকে (Yash Dasgupta) হাসতে দেখা গিয়েছিল। সেটাকেই স্যান্ডি পরম পাওয়া হিসেবে ধরে নিয়েছে।

Yash Dasgupta IN BJP
Yash Dasgupta IN BJP

ভালো কথার সাথে স্যান্ডি (Sandy Saha) আক্ষেপের কথা জানিয়েছেন যে , যশের গেরুয়া শিবিরে যাওয়াটা একেবারেই মেনে নিতে পারছে না স্যান্ডি সাহা। তার কথায় অভিনেত্রী নুসরাত তাকে আটকাতে পারেনি কিন্তু সে চাইলে যশকে পুরোটা না হলেও কিছুটা আটকাতে পারত। আরো বলেছে স্যান্ডি সাহা যে গেরুয়া শিবিরের কিছু মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি চিন্তাভাবনা তার কাছে অশিক্ষিতের পরিচয় দেয় । সেভাবে যশও (Yash Dasgupta) যদি এখন গরুর দুধের সোনা এবং গোমূত্র খাওয়ার কথা দাবি করে তাহলে স্যান্ডি কিছুতেই যশের প্রতি ভালবাসাটা একই জায়গায় রাখতে পারবেন না বলেও জানিয়েছেন বিখ্যাত ইউটিউবার।

প্রকাশ্যে মন্তব্য করতে গিয়ে হিরণকেও স্যান্ডি (Sandy Saha) ছাড়েনি। সে বলেছে যশ (Yash Dasgupta)-এর পর হিরণ দাও বিজেপিতে যোগ দিয়েছে । আসলে তারা বুঝে গেছিল দর্শকদের মনে খুব বিশেষ জায়গা করতে পারবে না। আর অভিনেতা হিরণ তো জন্মগত ফ্লপ। তাই তারা নিজেদের জায়গা করতে গেরুয়া শিবিরের পা রাখে। তবে যশ এবং স্যান্ডির এই অনুভূতি শেষমেশ পরিণতি কি হতে পারে সে বিষয়ে দর্শকদের কাছে এক ভীষণ চিন্তার বিষয় ।