বাংলাদেশের মসজিদে ভয়াবহ বিস্ফোরণ! বেড়েই চলেছে মৃতের সংখ্যা

শুক্রবার ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল বাংলাদেশের মসজিদ। রাতে নামাজ পড়ার জন্য মসজিদে বহু মানুষ জড়ো হয়েছিল। আর সেই সময় তীব্র বিস্ফোরণ ঘটে। যার জেরে অনেকেই ঘটনাস্থলেই মারা যায়। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে কয়েক জনের মৃত্যু হয়। মৃতের সংখ্যা আরো বাড়ার আশঙ্কা।

বাংলাদেশের স্থানীয় পুলিশ সূত্র খবর, ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটেছে নারায়ণগঞ্জের পশ্চিমে বায়তুশ শালা মসজিদে। রাত সাড়ে আটটা নাগাদ শুক্রবার মসজিদে নামাজ পড়ার জন্য অনেক লোক জড়ো হয়েছিল। প্রার্থনার শেষ পর্যায়ের কিছুক্ষণ আগে এই বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণে অগ্নিদগ্ধ ব্যক্তিদেরকে স্থানীয় হাসপাতাল এবং ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। মেডিকেল কলেজ সূত্রে জানা গেছে, মৃতদের সনাক্ত করার কাজ চলছে। কারণ তাদের দেহের 90 শতাংশেরও বেশি পুড়ে গেছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মসজিদের ইমামসহ 40 জনের চিকিৎসা চলছে। তাদের শরীরের অধিকাংশ অংশ ঝলসে গেছে। সকলকেই বার্ন ইনস্টিটিউট বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর আহতদের মধ্যে একজন কিশোর এবং মসজিদের ইমাম রয়েছে। প্রায় 10 জনের শরীরে 90 শতাংশ পুড়ে গেছে।

Terrible explosion in Bangladesh mosque

বিস্ফোরণের জেরে মসজিদের ভেতরে সম্পূর্ণ অংশ ভেঙে তছনছ হয়ে গেছে। পুলিশ প্রাথমিক তদন্তে অনুমান করছে, মসজিদের মাটির নিচে রয়েছে গ্যাসের পাইপ। সেই পাইপ লিক করে গ্যাস মসজিদের মধ্যে প্রবেশ কর। মসজিদের চারিপাশ বন্ধ থাকায় গ্যাস জমতে শুরু করে। কেউ বুঝতে না পারায় সুইচ অন করলে তা সশব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। তা থেকেই গোটা মসজিদ চত্বরে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। আগুনের তাপে এসি মেশিনগুলো ভয়ানক শব্দ ফেটে যায়।

নারায়ণগঞ্জ মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় বাংলাদেশ সরকার তিনটি তদন্ত কমিটি দল গঠন করে। শনিবার সকালে নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক জসীমউদ্দীন বাংলাদেশের সংবাদপত্র ‘প্রথম আলো’কে জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক খাদিজা তাহেরি ববিকে নির্দেশ দিয়েছেন পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করার জন্য। ওই পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটিকে আগামী পাঁচ দিনের মধ্যে রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মৃতদের কবরস্থ করার জন্য কুড়ি হাজার টাকা দেওয়া হবে এবং আহতদের চিকিৎসার জন্য 10 হাজার টাকা করে দেবে বাংলাদেশ প্রশাসন।

Arindam

Content writer and blogger at Sangbad World