নাগরিকত্ব প্রশ্নের মুখে? Rujira Banerjee-র সঙ্গে দেড় ঘণ্টা কথা CBI-র, এর পর কী? জল্পনা শুরু

West Bengal Assembly Election2021 CBI interrogation of Abhishek Banerjee's wife Rujira Banerjee ends.
CBI interrogation of Abhishek Banerjee’s wife Rujira Banerjee

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর স্ত্রী হলেন রুজিরা (Rujira Banerjee)-কে নিয়ে এই মুহূর্তে রাজনৈতিক জগতে যে টানাপোড়েন চলছে তা কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলছে তৃণমূলের। তাকে নিয়ে জল্পনা আজ থেকে নয়, বহু আগে থেকেই। এর আগে লোকসভা ভোটের সময় তাকে নিয়ে বেশকিছু জল্পনা শুরু হয় তারপর ধামাচাপা পড়লেও ফের এই বছর বিধানসভা ভোটের আগে সেই জল্পনার আবার উদ্ভব ঘটে। তবে এবার প্রশ্ন উঠেছে তার নাগরিকত্ব নিয়ে। West Bengal Assembly Election2021: CBI interrogation of Abhishek Banerjee’s wife Rujira Banerjee ends.

শান্তিনিকেতন নামে যে বাড়িতে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee) থাকেন সেখানে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা বিভাগ রুজিরার সাথে টানা সওয়া এক ঘন্টা কথোপকথন চালিয়ে যায়। কয়লা কান্ড কে কেন্দ্র করে ব্যাংকের সাথে রুজীরার (Rujira Banerjee) একটি সন্দেহজনক লেনদেন কে কেন্দ্র করে তাদের বেশ কিছু প্রশ্ন আদান-প্রদান ঘটে। গোয়েন্দা বিভাগের সাথে সদর দপ্তরের আধিকারিকরা তাদের মধ্যে যোগাযোগ রেখেছিলেন এবং তাঁরা স্পষ্ট জানান যে রুজিরা বেশ কিছু প্রশ্ন এড়িয়ে যান। এই কথা মত গোয়েন্দা দলকে শান্তিনিকেতন থেকে বেরিয়ে যেতে বলেন উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ রা এবং তারা সেই মুহূর্তেই বেরিয়ে যান। তবে গোয়েন্দা বিভাগ সংবাদ মাধ্যমের সামনে বিশেষ কিছু এখনো জানায়নি। তবে এইটুকু জানা গেছে যে, রুজিরা কোন সংস্থার সঙ্গে যুক্ত কিনা, এবং তার কটি পাসপোর্ট বা নাগরিকত্ব আদৌ আছে কিনা!

রুজিরা (Rujira Banerjee) নিজে ইমেইল করে আইনজীবীকে মঙ্গলবার সকাল দশটার সময় দেয়। আইনজীবী নির্দিষ্ট সময় পৌঁছায় এবং মমতা ব্যানার্জি (Mamata Banerjee) ১০ মিনিটের জন্য শান্তিনিকেতনে যান। তবে তিনি বলেন মুখ্যমন্ত্রী বা তৃণমূল নেত্রী হিসেবে নয় তাদের অভিভাবক তিনি সেখানে গেছেন। সংবাদমাধ্যমের সামনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোন মতামত রাখেননি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বেরিয়ে আসার ঠিক পাঁচ মিনিটের মধ্যেই গোয়েন্দা বিভাগ হাজির হন সেখানে। সিবিআই দলের ৮ জন সদস্য কে নিয়ে রূজিরার বৈঠক শুরু হয়। সিবিআই সূত্রে খবর, রুজিরা কে কি প্রশ্ন করা হবে সে বিষয়ে তারা নিজাম প্যালেসে বৈঠক করে নিয়েছেন। এবং গোয়েন্দা বিভাগ এও জানিয়েছেন যে রুজিয়ার বয়ান অডিও এবং ভিডিও রেকর্ড করা হবে। এবং তার নাগরিকত্ব নিয়ে প্রশ্ন করা হবে। গোয়েন্দা বিভাগের দলে আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন। রুজিনার দু’জায়গায় বাবার নাম ভিন্ন থাকায় গোয়েন্দা বিভাগের কাছে বিষয়টি ভীষণভাবেই অস্পষ্ট। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে মেল করে প্রশ্ন করেন সিবিআই বিভাগ।

তবে সিবিআই প্রশ্ন করার আগেই এই বিষয়ে প্রশ্ন করে রাখেন অর্জুন সিং। ব্যাংককে জন্মগ্রহণ করায় থাইল্যান্ডের পাসপোর্ট ইতিমধ্যেই ছিল অভিযোগের স্ত্রী এর। কিন্তু প্রামান্য সূত্রে দেখা যাচ্ছে তিনি একাধিক জায়গায় ভারতীয় নাগরিক বলে নিজেকে দাবি করছেন। তবে রুজিরার (Rujira Banerjee) প্যান কার্ডের আবেদন পত্র থেকে শুরু করে বিয়ের শংসাপত্র এবং ভারতীয় নাগরিকত্ব শংসাপত্রের তার বাবার নাম এক জায়গায় রয়েছে নিফন নারুলা এবং অন্য জায়গায় গুরুসরণ সিংহ আহুজা। ফলস্বরূপ সিবিআই এর কাছে এই বিষয়টি একটা বড় জিজ্ঞাসা চিহ্নের মতো হয়ে রয়েছে। এই বিষয়ে আজ পর্যন্ত নিষ্পত্তি হয়নি। তবে এর আগেও এ বিষয়ে জল্পনা শুরু হলেও ফের আবার জল্পনা শুরু হয় বিধানসভা ভোটের আগে। এই জল্পনার রেস কবে শেষ হবে এই মুহূর্তে বলা বেশ কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে।